মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

উপজেলা প্রশাসনের পটভূমি

সাতক্ষীরা উপজেলার পটভূমিঃ বাংলাদেশের দক্ষিণ পশ্চিমে সাতক্ষীরার অবস্থান। প্রাচীন কাল থেকেই ব্যাঘ্যতট, বাগড়ী, সমতট,  যশোর, বুড়োন, ইত্যাদি নামে অভিহিত হওয়ার পর সাতক্ষীরা ১৮৬১ সালে মহকুমা মর্যাদা পেয়ে প্রথমে যশোর জেলা ও ১৮৬৩ সালে ২৪ পরগুনা জেলার অন্তর্ভূক্ত হয়। ১৮৮২ সালে খুলনা জেলা প্রতিষ্ঠিত হলে সাতক্ষীরা খুলনা জেলার একটি মহকুমা হিসেবে স্থান পায়। ১৯৮৪ সালে বাংলাদেশের প্রশাসনিক বিকেন্দ্রিকরণের ফলে সাতক্ষীরা মহকুমা দেশে ৬৪ টি জেলার অন্যতম হিসাবে মর্যাদা লাভ করে। সাতক্ষীরা  জেলার ৭ টি উপজেলার মধ্যে জেলার প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থিত সাতক্ষীরা সদর উপজেলা।

         এই উপজেলার পূর্বে সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলা, দক্ষিণে আশাশুনি ও দেবহাটা উপজেলা, উত্তরে কলারোয়া উপজেলা ও পশ্চিমে ভারতের শ্চিম বঙ্গ রাজ্য অবস্থিত।

       

           সাতক্ষীরা সদর উপজেলার নাম করণ প্রসঙ্গে কয়েকটি মত প্রচলিত। এর মধ্যে প্রথান মতটি হলো - চিরস্থায়ী বন্দবস্তের সময় নদীয়ার রাজা কৃষ্ণচন্দ্রের এক কর্মচারী বিষ্ণু রাম চক্রবর্তী নিমালে বুড়ন পরগুণা কিনে তার অন্তর্গত সাতঘরিয়া গ্রামে বাড়ী তৈরী করেন। তার পুত্র প্রাণনাথ সাতক্ষীরা অঞ্চলে উন্নয়ন কাজ করে পরিচিত হন। ১৮৬১ সালে মহাকুমা স্থাপনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হলে ইজরেজ শাসকরা তাদের পরিচিত সাতঘরিয়াতেই প্র্রধান কার্যালয় স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেন। ইতোমধ্যেই সাতাঘরিয়া ইংরেজ রাজ কর্মচারিদের মুখেই পরিবর্তিত হয়ে সাতক্ষীরা হয়েছিল গিয়েছিল। তাই পুরানো সাতঘরিয়াই বর্তমানে সাতক্ষীরা।

 

       অপরটি, জমিদার প্রাণনাথ রায় চৌধুরী সমাজের বিশিষ্ট হওয়ার মানষে সাতঘযর কুলিন ব্র্রাহ্মণ এনে তার পরগুনায় বসতি স্থাপন করান। উক্ত সাতঘর ব্রাহ্মণের বাস স্থান থেকেই সাত ঘরিয়ার মাধ্যমে সাতক্ষীরা নাম হয়েছে বলে মনে করা হয়।