মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

প্রখ্যাত ব্যক্তিত্ব

প্রখ্যাত ব্যাক্তিত্ব

প্রাণনাথ রায়চৌধুরী :

 

আধুনিক সাতক্ষীরার স্থপতি বা রূপকার হিসাবে পরিচিত জমিদার প্রাণনাথ রায চৌধুরী ছিলেন জমিদার বিষ্ণুরাম চক্রবর্তীর (পরে রায়চৌধুরী) পুত্র।নদীয়ারপ্রসিদ্ধ জমিদার কৃষ্ণচন্দ্র রায়ের ( ১৭১০-১৭৮২বা ১৭৮৩) মৃত্যুর পর তাঁর অধিকৃত জমিদারি পরগনাগুলো নিলামে উঠলে তাঁরই কর্মচারী বিষ্ণুরাম চক্রবর্তী বড়ুন পরগনা (এখনকার সাতক্ষীরা) কিনে নেন।১৭৯৭ সালে তিনি সাতঘরিয়া বা সাতক্ষীরা এসে স্থায়ীভবে বসবাস শুরু করেন এবং ‍রায়চৌধুরী উপাধি লাভ করেন। জমিদার প্রাণনাথ সাতক্ষীরায় অনেক জনহিতকর কাজ করেন।তন্মধ্যে প্রাণ সায়ের খাল ও দিঘি খনন, রাস্তাঘাট নির্মাণ , ল্যাম্পপোস্ট স্থাপন , বৃক্ষরোপন অন্যতম। ১৮৬৯ সালে সাতক্ষীরা মিউনিসিপ্যালিটি (বর্তমানে পৌরসভা) স্থাপিত হলে তিনি প্রথম চেয়ারম্যান হিসাবে দীর্ঘদিন (কর্মকাল ১৮৬৯-১৮৯৪)দায়িত্ব পালন করেন। তাঁরই নামানুসারে সাতক্ষীরাতে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে প্রাণনাথ (পিএন) হাইস্কুল (১৮৬২) এবং প্রাণনাথ ওয়াটার ওয়াকর্স(১৯১৯)।

 

undefined

 

 

 

ত্রৈলোক্যনাথ মুখোপাধ্যায় (১৮৫১-১৯০৩) :

 

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বাবুলিয়া গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত জমিদার পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। কর্মজীবনে ব্রিটিশ সরকারের অধীন দ্বিতীয় আফগান যুদ্ধে ২৪ ঘন্টার মধ্যে ঝিলাম নদীর সেতু নির্মাণ করে সম্মাননা স্বরুপ "রাও সাহেব" উপাধি পান।

 

 

 

মোহাম্মদ ওয়াজেদ আলী (১৮৯৬-১৯৫৪):

 

সদর উপজেলার বাঁশদহ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।গ্রামের মধ্যে ইংরাজী স্কুল হতে বাল্য শিক্ষা সমাপ্ত করে নিকটবর্তী বাবুলিয়া উচ্চ ইংরেজী স্কুল হতে বৃত্তি পেয়েএন্ট্রান্স পরীক্ষায় পাশ করেন।পরবর্তীতে তিনি মাওলানা আকরাম খাঁ পরিচালিত সাপ্তাহিক মোহাম্মদী পত্রিকায় সম্পাদনা বিভাগে দীর্ঘদিন কর্মরত থাকেন এবং লেখক হিসেবে আত্নপ্রকাশকরেন।গল্প উপন্যাস প্রবন্ধ ও জীবনী প্রভৃতি বিভাগে তাঁর রচনাবলীর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছেস্বর্ণা নন্দিনী,মরুভাস্কর,শাহনামা,মহামানব মহসীন ও সিন্দাবাদ হিন্দবাদ।

 

ডাঃ এম আর খান (জন্ম ১৯২৮):

 

সাতক্ষীরাশহরের রসুলপুরে জন্মগ্রহণ করেন।পি,এন স্কুল থেকে কৃতিত্বের সাথে প্রবেশিকা এবং কলকাতা মেডিকেল কলেজ থেকে এম,বি,বি,এস পাশ করেন।পরে এডিনবার্গ থেকে এম,আর,সি,পি এবং এফ,আর,সি,পি সহ অনেক ডিগ্রি ও ডিপ্লোমা অর্জন করেন।ইংল্যাণ্ড ও আমেরিকায় বেশ কয়েকটি হাসপাতালে সিনিয়র হাউস অফিসার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।বিখ্যাত শিশু বিশেষজ্ঞ।তিনি একজন বিশিষ্ট সমাজসেবক।সাতক্ষীরায় নির্মিত শিশু হাসপাতাল তাঁরই অবদান।সমাজসেবায় অবদানের জন্য তিনি একুশে পদক পেয়েছেন।

 

নীলুফার ইয়াসমীন:

 

সাতক্ষীরার মুকুন্দপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। শৈশব থেকেই সঙ্গীতানুরাগী পরিবারে লালিত । বাংলাদেশের অন্যতম উচ্চাঙ্গসঙ্গীত শিল্পী । ব্যক্তিগত জীবনে প্রখ্যাত চলচ্চিত্রকার ও সঙ্গীত পরিচালক খান আতাউর রহমানের স্ত্রী।

 

সাবিনা ইয়াসমিন:

 

সাতক্ষীরার মুকুন্দপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।ছোটবেলা থেকেই সংগীত চর্চা করেছেন।বাংলাদেশের অন্যতম বিখ্যাত জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী সংগীতে অবদানের জন্য একুশে পদক পেয়েছেন।

 

তারিক আনাম (জন্ম ১৯৫৩):

 

সাতক্ষীরা শহরে জন্মগ্রহণ করেন।পি,এন,স্কুল, সাতক্ষীরা কলেজ এবং ঢাকা শহরে পড়াশুনা করেন।দিল্লীর ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামার ডিপ্লোমা পেয়েছেন।ছাত্রাবাস থেকেই সাংস্কৃতিক সংগঠন কোরকের সাথে যুক্ত ছিলেন।বাংলাদেশের অন্যতম টেলিভিশন,মঞ্চ ও চলচ্চিত্র অভিনেতা।বর্তমানে থিয়েটারের সাথে যুক্ত আছেন।

 

আবেদ খান:

 

সাতক্ষীরা শহরে জন্মগ্রহণ করেন।শিক্ষা লাভের পর সাংবাদিকতা শুরু করেন।বাংলাদেশের একজন বিশিষ্ট সাংবাদিক।তিনি একজন জাতীয় দৈনিক পত্রিকার সম্পাদক।

 

রুহুল কুদ্দুস:

 

সাতক্ষীরা সদরউপজেলার পাঁচরাখী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।আগরতলা মামলার অন্যতম অভিযুক্ত ছিলেন।এই জেলার প্রথম সি,এস,পি।স্বাধীনতা আন্দোলনের অন্যতম সৈনিক।স্বাধীনতা উত্তরকালে বাংলাদেশ সরকারের প্রথম মুখ্য সচিবের পদ অলংকৃত করেন।

 

বিপ্লবী কেশবচন্দ্র সমাদ্দার :

 

ব্রিটিশ বিরোধী সংগ্রামে অংশগ্রহণের অপরাধে তাকে ১৯৩০ খ্রিস্টাব্দে আন্দামান দ্বীপপুঞ্জে নিরবাসিত করা হয়। তিনি সারা জীবন অন্যায় শোষন-শাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে গেছেন। সাতক্ষীরা সদরে সাতানী গ্রামে নিজ বাড়িতে তাকে সমাহিত করা হয়।

 

শেখ নজরুল:

 

পিতা- নুরুল ইসলাম; মাতা-বেগম রাশীদা খানম; স্ত্রী- চঞ্চলা চঞ্চু । জন্মস্থান ও জন্মতারিখ : সাতক্ষীরা, ১৬ নভেম্বর ১৯৬৪ । বর্তমান ঠিকানা : ২১/৩ তালতলা অফিসার্স কোয়ার্টার, আগারগঁfও , ঢাকা ১২০৭ । স্থায়ী ঠিকানা : জগন্নাথপুর, ডাকঘর : শিমুলিয়া, জেলা:সাতক্ষীরা । শিক্ষা:মাধ্যমিক (বিজ্ঞান): নলতা হাইস্কুল, সাতক্ষীরা (১৯৮০), উচ্চ মাধ্যমিক (বিজ্ঞান): কলারোয়া সরকারি কলেজ, সাতক্ষীরা (১৯৮২), স্নাতক (কলা) : দৌলতপুর বি.এল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, খুলনা (১৯৮৪); স্নাতকোত্তর (বাংলা) : দৌলতপুর বি.এল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, খুলনা (১৯৮৮); প্রকৌশল ডিপ্লোমা (পুর:): খুলনা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট (১৯৮৯):স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, আগারগাঁও , ঢাকা । প্রকাশিত গ্রস্থ : কবিতা : যতক্ষণ তুমি মাধবী (১৯৯৭); পাঁজরের মানচিত্রে অনেক নদী(১৯৯৮); নিষিদ্ধ নমস্কার(১৯৯৯); তবুও চাই আলোকিত ভোর(১৯৯৯);বাকিটুকু অবগাহন(২০০০); বারুদের কংকাল(২০০১); কষ্টের অনুবাদ (২০০৩); মা ও জোনাক তারার কাব্য (২০০৪); অষ্ট ধাতুর মাদুলি (২০০৪); Voice of Humanity (২০০৪); আমার খুনের তালিকায় জোছনাও আছে (২০০৫); মীমাংসিত মৃত্যু অমীমাংসিত জীবনে (২০০৬); মলাটবন্দি চেতনার কফিন (২০০৬) । ছড়া : কার ঘাড়ে কে চড়ে (২০০০); ফন্দিফিকির(২০০৩); কাঠমোল্লা(২০০৪);রাজনীতি এ্যাটরেট জনগণ ডটকম (২০০৫);বুকের ভেতর বাংলাদেশ(২০০৬)। গল্প: গ্লাসভাঙা দুপুর (২০০৬); ।পুরস্কার: শেরেবাংলা স্বর্ণপদক (১৯৯৯); ফিল্ম মুভমেন্ট পুরস্কার(২০০০); কবি সংসদ পুরস্কার(২০০১); বাংলাদেশ কলামিস্ট এসোসিয়েশন পুরস্কার (২০০৫) ।